ডিজিটাল স্কিলমাইক্রোসফট অফিসমাইক্রোসফট এক্সেল

Microsoft Excel Fundamental – মাইক্রোসফট এক্সেল ফান্ডামেন্টাল। পর্ব – ০১

Excel Terminologist

Terminologist বা সফটওয়্যার এর পরিভাষা শেখাটা শুরুতে অনেক বোরিং মনে হলেও এটা আসলে অনেকটা বেশী প্রয়োজনীয়। কেননা আমরা এক্সেলে কাজ করার সময় অনেক ক্ষেত্রে আটকে যাই এবং গোগোলে(Google) সলিউশন খুঁজি। তবে গোগোলকে যদি আমরা প্রবলেমগুলো ইফেক্টিভ’লি না বুঝাতে পারি তাহলে আমাদের প্রবলেম গুলোর সলিউশন আমরা কখনোই পাব না। তাই এক্সেল এর Interface সম্পর্কে সব কিছু জানা আমাদের জন্য অত্যান্ত জরুরী।

Fig: Excel Interface

প্রথমে আমরা এক্সেল-এ একটি ব্ল্যাংক ওয়ার্কবুক ওপেন করেন নিই। ব্ল্যাংক ওয়ার্কবুকটি ওপেন করার পর আমরা দেখছি আমাদের সামনে একটা ছক টানা খাতা। এই ছক টানা খাতাটিকেই বলা হয় একটি ওয়ার্কশীট(Worksheet) বা স্প্রেডশীড(Spreadsheet)। MS excel হচ্ছে একটি স্প্রেডশীট প্রোগ্রাম বা সফটওয়্যার।

  • Interface এর একেবারে উপরের দিকে দেখা যাচ্ছে একটি সবুজ রঙের ফিতা। এটাকে বলা হয় এক্সেল রিবন। এই রিবনে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের ট্যাব। যেমনঃ Home, Insert, Page Layout, Formula, Data. Review, View, Help.

Fig: Excel Toolbar & Tool groups (Red Marked)

  • আমরা যদি প্রতিটা ট্যাবে ক্লিক করি তাহলে দেখতে পাব একটা ‘অ্যাশ’ কালারের সেকশন যার নাম হচ্ছে টুলবার। টুলবারে রয়েছে এক্সেল এর সব পাওয়ারফুল টুল যা আলাদা আলাদা সেকশনে ভাগ করা রয়েছে। যেমন, আমি যদি আমার নাম লিখি এবং এই লেখাটাকে গাঁড় করতে চাই তাহলে আমাকে টুলবারের ফন্ট (Font) গ্রুপ হতে বোল্ড (B) অপশনটি সিলেক্ট করতে হবে। ঠিক একইভাবে আমি যদি আমার নামটাকে আন্ডারলাইন করতে চাই তাহলে আমাকে ফন্ট গ্রুপ হতে আন্ডারলাইন (U) অপশনটিতে সিলেক্ট করতে হবে। অর্থাৎ প্রত্যেকটা কাজের জন্য টুলবারকে আলাদা আলাদা সেকশনে ভাগ করে রাখা হয়েছে। যেমন Home ট্যাব এর টুলবারে রয়েছে, Clipboard, Font, Alignment, Number, Style, Sell, Editing নামের আলাদা আলাদা গ্রুপস। আমরা পরবর্তীতে এই সকল গ্রুপস এবং টুল এর কাজ সম্পর্কে বিস্তারিত জানব।

 

  • প্রথমে আমরা এক্সেল ওয়ার্কবুকটিকে একটি ছকটানা খাতার সাথে তুলনা করেছিলাম। একটা খাতা বা বইয়ে যেমন পেইজ(Pages) থাকে, তেমনি একটা এক্সেল ওয়ার্কবুকে থাকে ওয়ার্কশীট(Worksheet)।

এবার যদি আমরা এক্সেল এর একেবারে নিচের দিকে তাকাই তাহলে দেখা যাবে একটি ট্যাব এবং তাতে Sheet1 লেখা আছে এবং ঠিক তার পাশেই একটি প্লাস(+) সাইন রয়েছে। এই প্লাস সাইনে ক্লিক করলেই দেখা যাবে আরো একটি নতুন ট্যাব(Sheet2) ওপেন হয়েছে। এর মানে আমরা যতবার + সাইনে ক্লিক করব ঠিক ততটাই আলাদা ট্যাব ওপেন হবে। এবং প্রত্যেকটি আলাদা ট্যাব এ আলাদা ড্যাটা স্টোর করে রাখতে পারব।

আমাদের স্প্রেডশীটে যে ছোট ছোট বক্স গুলো দেখতে পাচ্ছি এইগুলোরও একটা ফরমাল নাম রয়েছে। এক্সেল ল্যাঙ্গুয়েজে এগুলোকে বলা হয় সেল(Cell).

Fig: Cells

আমরা যখন একটা সেল কে সিলেক্ট করি তখন সেল এর চারপাশে একটা সবুজ আউটলাইন দেখা যায়। এর মানে, এই সেলটা এখন একটিভ। এবং এই সবুজ আউটলাইন সহ সেলটাকে আমরা বলে থাকি একটিভ সেল। এর মানে সেল টি এখন সিলেক্টেড।

একটিভ সেল এ যখন আমরা কোনকিছু টাইপ করি, খেয়াল করলে দেখা যাবে টুলবারের(Toolbar) নিচে একটি সাদা বক্সে ঠিক একই লেখাটি দেখাচ্ছে। এই সাদা সেকশনটাকে বলা হয় ফর্মুলা বার(Formula Bar)। ফর্মুলা বার ব্যাবহার করে আমরা আমাদের একটিভ সেল এর তথ্যগুলোকে সহজেই নিপুণভাবে কাজে লাগাতে পারব।

মজার বিষয় হল, মাইক্রোসফট এক্সেলের প্রতিটা সেল এর আছে একটা ইউনিক নাম। যা আমরা ফর্মুলা বারের জাস্ট বাম দিকে তাকালেই দেখব একটা ছোট বক্সে উল্লেখ করা আছে। এই বক্স টার নাম হচ্ছে নেইম বক্স(Name Box)।

নিচের ছবিতে দেখো নেইম বক্স -এ লেখা আছে C5 । এখন C5 মানে কি! প্রতিটা সেল এর ইউনিক নেইম নির্ধারিত করা হয় সেল টার কলাম লেটার্স(Column Letters) এবং রো নাম্বার(Row Number) দিয়ে। উদাহরণস্বরূপ, আমরা যদি C5 এর পাশের সেল এ ক্লিক করি তাহলে আমরা দেখব কলাম লেটার হচ্ছে D এবং রো নাম্বার হচ্ছে 5. এর মানে সেল টার নাম হল D5 । আরেকটা মজার ফ্যাক্ট হল, মাইক্রোসফট এক্সেলে আছে 10,48,576 এরও বেশী রো(Rows) এবং 16,384 এরও বেশী কলাম(Columns)। তো! শুধু চিন্তা করার বিষয়, কতগুলো ইউনিক সেল নিয়ে মাইক্রোসফট এক্সেল গঠিত।

Fig: Formula Bar, Name Box, Column Letters, Row Numbers

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Content is protected !!

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker