এটাও কি সৌদি আরবের নতুন যুগে যাত্রাপথের এক ইঙ্গিত? কদিন আগেই সৌদি আরবের ভবিষ্যৎ রাষ্ট্রপ্রধান মোহাম্মদ বিন সালমান দেশটিকে উদার ও আধুনিক পথে নিয়ে যাওয়ার এক ভিশনের কথা বলেছিলেন। কট্টর মুসলিম দেশ বলে পরিচিত সেই সৌদি আরব এবার একটি ‘নারী’ রোবটকে নাগরিকত্ব দিল। পৃথিবীতে কোনো রোবটকে নাগরিকত্ব দেওয়ার ঘটনা এটাই প্রথম।
দেশটির রাজধানী রিয়াদে আজ আনুষ্ঠানিকভাবে সোফিয়া নামের এই রোবটটিকে নাগরিকত্ব দেওয়া হয়। প্যানেল সঞ্চালক ও ব্যবসাবিষয়ক লেখক অ্যান্ড্রু রস সরকিন ওই অনুষ্ঠানে নাগরিকত্ব দেওয়ার ঘোষণা পড়ে শোনান এভাবে, ‘সোফিয়া, আশা করি তুমি শুনছ, আমরা মাত্র জানতে পারলাম, তোমাকে প্রথম রোবট হিসেবে সৌদি নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছে।’
জবাবে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সোফিয়া বলে, ‘সৌদি আরবকে কৃতজ্ঞতা জানাই। এই অনন্য সম্মান পেয়ে আমি গর্বিত ও সম্মানিত বোধ করছি। এটা ঐতিহাসিক এক মুহূর্ত হতে চলল, কারণ এই প্রথম সারা বিশ্বে কোনো রোবট নাগরিকত্ব পেল।’
তেলসম্পদে সমৃদ্ধ দেশটি নতুন যুগের পথে যাত্রা শুরু করতে চায়। ৩২ বছর বয়সী তরুণ যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান দেশটির প্রধান বিনিয়োগের ক্ষেত্র হিসেবে প্রযুক্তিকেই দেখছেন। দেশটির রাজনৈতিক সংস্কৃতিতেও ধীরে ধীরে পরিবর্তন সূচনার পক্ষে তিনি। যদিও সমালোচকেরা বলছেন, রোবট সোফিয়া যে সুবিধা বা সম্মান পাচ্ছে, তা দেশটির অনেক নাগরিকই পায় না।

সূত্র: দ্য ইনডিপেনডেন্ট।

Share.

About Author