অ্যাপলের এয়ারড্রপ ফিচারটি চালু থাকলে তা নিপীড়নের টুল হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের সাবওয়েতে যাতায়াত করা নারীদের ফিচারটি ব্যবহারে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। ফিচারটি কাজে লাগিয়ে আশপাশের অপরিচিত কেউ বাজে ছবি পাঠানোর চেষ্টা করতে পারেন।

ভুক্তভোগী ব্যক্তিরা অভিযোগ করছেন, এয়ারড্রপ ব্যবহার করে নগ্ন ছবি পাঠানোর ঘটনা ঘটছে। এয়ারড্রপ ফিচার চালু থাকলে এতে ছবি গ্রহণের অনুরোধ আসছে। সে অনুরোধ রাখলেই পুরুষের নগ্ন ছবি চলে আসছে আইফোনে। তাই সাবওয়েতে চলার সময় কেউ কিছু শেয়ার করতে চাইলে এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে হচ্ছে আইফোন ব্যবহারকারীদের।

নিউইয়র্ক পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিউইয়র্কের সাবওয়েতে এয়ারড্রপের মাধ্যমে অপরিচিত কেউ কিছু শেয়ার করতে চাইলে সতর্ক থাকতে হচ্ছে। ফিচারটি মূলত ছবি ও ফাইল সহজে আইফোন ও ম্যাকের মধ্যে শেয়ার করার জন্য তৈরি।

ভুক্তভোগী ব্রিটা কার্লসন বলেন, ‘ঘুণাক্ষরেও ভাবিনি যে এয়ারড্রপ ব্যবহার করে কেউ এ ধরনের কিছু পাঠাতে পারে।’ নিউইয়র্ক সিটির মেট্রোপলিটন ট্রানজিট অথোরিটি এ বিষয়ে অবশ্য মন্তব্য করেনি।

ওয়াই-ফাই ও ব্লুটুথ ব্যবহার করে এয়ারড্রপ চালানো যায় বলে কোনো কিছু পাঠাতে বা গ্রহণ করতে কোনো নম্বর বা ইউজারনেম শেয়ার করার প্রয়োজন পড়ে না। দ্রুত ফাইল শেয়ারের জন্য এয়ারড্রপ চালু রাখেন অনেকে। বিজনেস ইনসাইডারের প্রতিবেদনে বলা হয়, যাকে সহজে সন্দেহ হয় না—এমন কাউকে মজার ছবি পাঠাতে এয়ারড্রপ ব্যবহার করা হয়। চাইলে সহজে ফিচারটি নিয়ন্ত্রণ করা যায়।

এয়ারড্রপ সেটিংস পরিবর্তন করতে কন্ট্রোল সেন্টার থেকে এয়ারড্রপে যেতে হবে। এটি পুরোপুরি বন্ধ রাখা বা শুধু কন্টাক্ট থেকে ফাইল গ্রহণ করার অপশনটি চালু করে দিন। চালু থাকা অবস্থায় অপরিচিত কারও ছবি গ্রহণ করা ঠিক নয়।

Share.

About Author